আইমার দ্বিতীয় রাজ্য সমাবেশে লক্ষ জনতার সাক্ষি থাকবে কলকাতা, দাবী পিরজাদা রুহুল আমীনের

নিজস্ব প্রতিনিধি, টাইমস্ বাংলা ,কলকাতা : আগামী ২০ ডিসেম্বর দুপুর ১ টা থেকে কলকাতার রানী রাসমনি রোডে দ্বিতীয়বারের জন্য রাজ্য সমাবেশে করতে চলেছে অল ইন্ডিয়া মাইনোরিটি অ্যাসোসিয়েশন বা আইমা।ক্রমেই যে অসহায় নিপীড়িত মানুষের মনে আইমা জায়গা করে নিচ্ছে সে বিষয়ে কোন সন্দেহ নেই। কারন কেবল রাজ্য নয়, দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা আমজনতার আওয়াজ প্রথম বছরেই এ কথার সত্যতা নিশ্চিত করেছিল। 

আর সেই ধারা অব্যহত রেখে এবারের সমাবেশে লক্ষ জনতার সাক্ষি থাকবে কলকাতা’ বলে আশা ব্যক্ত করলেন মেদিনীপুরের এই তরুণ তুর্কি পিরজাদা রুহুল আমীন।

আইমা আজ আর কোন নাম নয়.. অসহায় মানুষের আশা-আকাঙ্খার প্রতীক । রাজনৈতিক নেতা-দাদারা যখন দলীয় অথবা ব্যাক্তি স্বার্থে অত্যাচারীত মানুষ থেকে মুখ ফিরিয়ে নেয় তখন আইমার দরজা তাদের জন্য খোলা পাওয়া যায় 365×24 দিন । ওই বঞ্চিতদের ইনসাফ পাইয়ে দিতে নিঃস্বার্থে ঝাঁপিয়ে পড়ে আইমার অনুগত সৈনিকেরা । 

জন্মলগ্ন থেকে আজ প্রায় ৭ বছর ধরে সামাজিক আন্দোলনে বিরাট ভুমিকা পালন করে চলেছে আইমা । রাজনৈতিক, পারিবারিক, জমিন-জায়গা, আইনি ঝামেলা, স্বাস্থ্য পরিসেবা, সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা প্রতিটি ক্ষেত্রেই অন্যায়ের বিপক্ষে ন্যায়ের প্রতিষ্ঠা করতে সদা তৎপর আইমা । জাতি ধর্ম নির্বিশেষে সব ধরনের বঞ্চিত মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের মাথা তুলে বাঁচার রাস্তা দেখাচ্ছে এই সংগঠনটি । আর ঠিক এ কাজের স্বীকৃতি স্বরুপ, আইমার আজ পূর্ব মেদিনীপুরের গন্ডি ছাড়িয়ে পৌঁছে গেছে রাজ্যের আরও বারোটি জেলায় । 

 

সাধারন মানুষকে শুধু পরিসেবা পাইয়ে দেওয়া নয়, সাথে দুঃস্থ অসহায় মানুষের মুখে ভাত পরনের কাপড় পৌঁছে দিয়ে মুখে হাসি ফোঁটানোর কাজটিও খুবই আগ্রহভরে করে এই সংগঠনটি । সেই সাথে বন্যা দূর্গত মানুষের হাতে বন্যাত্রান তুলে দেওয়া, চরম অত্যাচারিত রোহিঙ্গাদের সাহায্যার্থে ত্রান পৌঁছে দেওয়া । 

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সাহায্যের জন্য আইমার কর্তারা সোশ্যাল মিডিয়ায় আবেদন করেন। অসংখ্য মানুষ তাতে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়- এবং প্রায় এক লক্ষ বাহাত্তর হাজার টাকা অনলাইনের মাধ্যমে সংগৃহীত হয় । তার সাথে যোগ হয় এলাকায় এলাকায় আইমার কর্মীদের ত্রান সংগ্রহ অভিযান । সব মিলিয়ে প্রায় দশ লক্ষাধিক টাকার ত্রান, আইমার সম্পাদক সাঈদ রুহুল আমীন সাহেব নিজ তত্বাবধানে পৌঁছে দেন কক্সবাজার রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে । 

 

একই সাথে আইমার লক্ষ্য বঞ্চিত সংখ্যালঘু শ্রেণী ST/SC/OBC দের প্রাপ্য মৌলিক অধিকারকে প্রতিষ্ঠা করা । আইমার দাবী এজন্য  রাজনৈতিক ক্ষমতাকে নিয়ন্ত্রন করার পথে আমাদেরকে এগোতে হতে।

ইত্যাদি একাধিক উদ্দেশ্য ও লক্ষ্যকে সামনে রেখেই আগামী ২০ ডিসেম্বর, ধর্মতলায় রানী রাসমনি রোডে রাজ্য সমাবেশের ডাক দিয়েছে আইমা।

 

পাশা পাশি পিছিয়ে পড়া সমাজের সকল মানুষকে নিজেদের অধিকার আদায়ের স্বার্থে এই সমাবেশে যোগদানের আহ্বান জানিয়েছেন সৈয়দ রুহুল আমীন সাহেব। 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *