আজ ফোরামের বিকাশ ভবন অভিযান:জনপ্লাবনের অপেক্ষায়

এইচ.ইউ.ফারুক,টাইমস বাংলা, কলকাতা:বেঙ্গল মাদ্রাসা এডুকেশন ফোরাম আজ বিকাশ ভবন অভিযানের ডাক দিয়েছে।সরকারি অনুমোদিত ও অনুদান প্রাপ্ত মাদ্রাসা গুলিতে ২০০৮ সাল থেকে মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের মাধ্যমে শিক্ষক নিয়োগ হতো।কমিশন সর্বশেষ পঞ্চম এসএলএসটি তে শিক্ষক নিয়োগ করে ২০১২সালে।সেই পঞ্চম এসএলএসটি তে ২৪জন অপেক্ষমান তালিকায় ছিলেন যাদের পরবর্তীতে মাদ্রাসা নির্বাচন সম্পন্ন হয়েগিয়েছিল। পাঁচ বছর অতিক্রান্ত হয়ে গেছে কিন্তু মাদ্রাসায় নিয়োগ তারা পাননি।এই পাঁচ বছরে গঙ্গা দিয়ে অনেক জল গড়িয়েছে।কমিশন ইতিমধ্যে ২০১৪ সালে ষষ্ঠ এসএলএসটি পরীক্ষা নিয়েছে তার ফল প্রকাশ করেছে দীর্ঘ দুই বছর পরে ২০১৬ সালের ৫ই সেপ্টেম্বরে।তারপরও দশ মাস অতিক্রান্ত কমিশন ইন্টারভিউ নিচ্ছে না।কেন নিচ্ছে না তার কোন উপযুক্ত কারণ কমিশন অফিসিয়ালি জানায়নি।ফোরামের আইনি লড়াইয়ের জেরে সুপ্রিম কোর্ট, হাই কোর্টের রায়ের উপর স্থগিতাদেশ দিয়ে কমিশন কে তার পূর্বের স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে দিয়েছে।গত ২৪শে এপ্রিল সুপ্রিম কোর্ট ‘লিভ গ্রান্ট’করে কমিশন কে তার বকেয়া কাজের সুযোগ করে দিয়েছে।তারপরেই মাদ্রাসা শিক্ষা দপ্তর বিজ্ঞপ্তি জারি করে মাদ্রাসা কমিটির মাধ্যমে নিয়োগের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে।এতদিন মাদ্রাসায় নিয়োগ করার জন্য পরিচালন সমিতি যে আশা করেছিল তাতে ঐ বিজ্ঞপ্তি জল ঢেলে দেয়।কিন্তু তারপরেও কমিশন শিক্ষক নিয়োগের কোন তৎপরতা দেখায়নি।এই পরিস্থিতিতে ফোরাম আইনি লড়াইয়ের সঙ্গে সঙ্গে গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে রাজপথেও লড়াই করেচলেছে।মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের মাধ্যমে দ্রুত শিক্ষক নিয়োগের দাবিতে ফোরাম আজ বিকাশ ভবন অভিযান করছে।সেখানে গণ ভোটেরও আয়োজন করাহয়েছে।কমিশনের মাধ্যমে শিক্ষক নিয়োগের পক্ষে সকল শুভবুদ্ধি সম্পন্ন মানুষকে আহ্বান করেছে ফোরাম।তারপর মুখ্যমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রীকে স্মারকলিপি দেওয়ার ও কর্মসূচি রয়েছে।ফোরামের নেতৃত্বের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, বিকাশ ভবন অভিযানে আজ জনপ্লাবন অপেক্ষা করছে।এই অভিযানে ষষ্ঠ এসএলএসটি উত্তীর্ণ চাকুরি প্রার্থী,মাদ্রাসা শিক্ষক ও কমিশনের শুভাকাঙ্খী সকল শ্রেণির মানুষ স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে অংশ গ্রহণ করবেন।মাদ্রাসা শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে এই অচলাবস্থা নিয়ে মানুষ ক্ষোভে ফুঁসছেন।পাঁচ বছর ধরে মাদ্রাসায় শিক্ষক নিয়োগ হচ্ছে না, শিক্ষকের অভাবে মাদ্রাসার পঠন-পাঠন লাটে উঠেছে।তার উপর মাদ্রাসার শিক্ষক দের এসএসসি এর মাধ্যমে প্রধান শিক্ষক পদে আবেদন করতে সুযোগ দেওয়া হয়নি,যা ক্ষোভে ঘৃতহুতি দিয়েছে।মাদ্রাসা নিয়ে এই আন্দোলন বৃহত্তর আকার ধারণ করেছে বলে অভিমত ওয়াকিবহাল মহলের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *